Rid of Bad Habits-(2021)খারাপ অভ্যাস থেকে মুক্তি

0
67

খারাপ অভ্যাস থেকে মুক্তি (Rid Of Bad Habits) যেমন -মদ, বিড়ি-তামাক, আফিম, গাঁজা ইত্যাদি,

নেশা গ্রহণের খারাপ প্রভাবের কারণে, প্রায়শই সাধারণ ব্যক্তি ভয় পান, সুতরাং (So) আক্রান্ত ব্যক্তির সঙ্গে সঙ্গে কীভাবে

চিকিত্সা করবেন, এবং ভবিষ্যতে আসক্তি থেকে কীভাবে মুক্তি পাবেন এর জন্য কিছু আয়ুর্বেদিক উপচার নিম্নে দেওয়া হল। ⤋

তামাক বা ধূমপানের অভ্যাস থেকে মুক্তি পেতে (Get rid of the habits of tobacco or smoking):-

১০০ গ্রাম আজোয়ান (জোয়ান) আর ১০০ গ্রাম বড় মৌরী নিয়ে, পরিষ্কার করে, তার সাথে ৬০ গ্রাম কালো লবণ (বিট লবণ)

মিশিয়ে, চূর্ণ তৈরী করতে হবে। তারপর (after that) এই মিশ্রণটির সাথে ২ টি লেবুর রস মিশিয়ে রাত ভোর

(পূর্ণিমা রাত্রে চাঁদের আলোয় রেখে দিলে অধিক ফল পাওয়া যায় ) রাখতে হবে। দ্বিতীয় দিন সকালে এই মিশ্রণটি-

তাবার উপর ধিমে আঁচে গরম করে, শুকিয়ে কাঁচের পাত্রে রেখে দিন। এছাড়া (in addition) গরম জলের ছিটা দিয়ে,

ছোলার দানা বরাবর গুলিও (বড়ি) তৈরী করে রাখতে পারেন। এখন আপনার ঔষধ টি প্রস্তুত।

কীভাবে ঔষধ সেবনে বদ অভ্যাস থেকে মুক্তি পাবেন (How to get rid of bad habits by taking medicine)

যখন বিড়ি বা তামাক খাওয়ার ইচ্ছা জাগে, তখন কিছু ঔষধ চূর্ণ মুখে দিয়ে চিবান, অন্য দিকে (on the other hand)

ধুম পান বা তামাক খাওয়ার ইচ্ছা জাগেলে ১-১ বড়ি ঔষধ দিনে ৪ থেকে ৬ বার চুষে চুষে সেবন করতে পারেন।

তেমনি (Likewise) কয়েক দিন এই ঔষধ টি এক টানা সেবন করলে, বদ অভ্যাস (rid of bad habits) গুলি ধীরে

ধীরে ঠিক হয়ে যাবে। এরই সাথে অন্য লাভ যেমন – গ্যাস, পাচন শক্তি বৃদ্ধি, খিদে লাগা,রক্ত শুদ্ধ, ইত্যাদি ঠিক হয়।

দ্বিতীয়ত (secondly) এই ঔষধ সেবনে, পানের সাথে জর্দা, তামাক খাওয়ায় বিগড়ে যাওয়া দাঁত এবং দাঁতের ব্যথাও ঠিক হয়।

তথা, ৪০ দিন পর্যন্ত একটানা ঔষধ সেবনে দাঁতের ভিতরে পান, তামাকের দাগও পরিষ্কার হয়ে যায়।

(সহায়ক উপচার) এই ঔষধ সেবনের সাথে সাথে হালকা হজমযোগ্য ও খিদের থেকে কম খাওয়া তথা প্রাতঃ ভ্রমণ,

যোগাসন ও প্রাণায়াম করলে শীঘ্র লাভ হয়।

প্রথম বিকল্প পদ্ধতি (The first alternative method)

যদি আপনি বিড়ি,সিগারেট ও তামাকের নেশা ছাড়তে চান ? কিন্তু (But) বদ অভ্যাস (rid of bad habits) ছাড়তে না পারলে,

আপনি একটি ছোট হরিতকি ( কালো হরিতকি/ দশকর্মার দোকানে পাওয়া যায় ) কেঁটে ছোট ছোট টুকরো করে, সাথে রাখুন,

যখন আপনার নেশা করার ইচ্ছা করবে, তখন এক টুকরো হরিতকি মুখে দিয়ে ধীরে ধীরে চুষতে থাকুন।

ফলস্বরূপ ( as a result) কিছু দিন সেবন করলে, আপনি বিড়ি,সিগারেট ও তামাকের নেশার

বদ অভ্যাস (rid of bad habits) থেকে মুক্তি পাবেন।

দ্বিতীয় বিকল্প পদ্ধতি (The second alternative method)

বিড়ি,সিগারেট ও তামাকের নেশা ছাড়ার জন্য, দারুচিনি (দারচিনি ) ভাল গুঁড়ো করে মধু মিশিয়ে একটি ডিব্বা বা কাঁচের

পাত্রে রেখে দিন। সুতরাং (So) যখন বিড়ি,সিগারেট ও তামাকের নেশা লাগে তখন আঙুলের সাহায্যে কিছুটা ঔষধ চাটুন।

এছাড়াও (in addition) পেঁয়াজের রস ২৫ গ্রাম নিয়মিত ভাবে প্রতি দিন এক বার সেবন করলে,

তামাকের বিষ বা তামাকের নেশা ধীরে ধীরে ছুটে যায়।

অ্যালকোহল ( মদ )থেকে মুক্তি পাওয়ার উপায় (Ways to get rid of alcohol)

প্রথমত (Firstly) আপেলের রস (Apple Juice) বার বার খেলে বা সকাল, সন্ধ্যা ভোজনের সাথে আপেল খেলে,

অর্থাত (That is) আপেল অধিক পরিমানে প্রয়োগ করলে অ্যালকোহলের নেশা ধীরে ধীরে দুর হয়ে যায়।

এছাড়াও (in addition) আফিমের অভ্যাস থাকিলে সে অভ্যাস ও দুর হয়ে থাকে।

অন্য বিধি:- বদ অভ্যাস (rid of bad habits) থেকে মুক্তির জন্য সিদ্ধ করা আপেল যদি দিনে ৩ থেকে ৪ বার

সেবন করা যায়, তো, কিছু দিনের মধ্যে মাতালদের মদ খাবার অভ্যাস নষ্ট হয়ে যায়।

আরও (further), বিভিন্ন ধরণের নেশা যুক্ত দ্রব্যের উপর ঘৃণা উৎপন্ন হয়।

বিকল্প বিধি (Alternative rules)

দেশী আজোয়ান (জোয়ান) ৫০০ গ্রাম নিয়ে ছোট ছোট চুর্ণ তৈরী করে, ৮ কিলো জলে (১৬ গুনা ) ৪৮ ঘন্টা পর্যন্ত,

মাটি বা চীনা মাটির পাত্রে ভিজিয়ে রাখতে হবে। তারপর (after that) ধিমে ধিমে আঁচে সিদ্ধ করবে, চতুর্থ ভাগ জল

থাকতে আঁচের উপর থেকে নামাতে হবে। দ্বিতীয় দিন চোটকে চোটকে ছেকে নিয়ে বতলে ভরে রাখতে হবে।

পরবর্তীকালে (subsequently) যখন মদ খাবার ইচ্ছা করবে, তখন হাফ আউন্স (৪ চামচ ) মাত্রায় এই দেশী আজোয়ানের

(জোয়ান) জল মদের মতো পান করবে। ৩ থেকে ৪ সপ্তাহ এটি সেবনে করলে, প্রায় মদ খাবার

বদ অভ্যাস (rid of bad habits) থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।

চা থেকে মুক্তি পাওয়ার উপায় (Ways to get rid of tea)

চায়ের অভ্যাস ত্যাগ করার জন্য একটি লবঙ্গ, দুটি গোলমরিচ আর চারটি তুলসী পাতা ২৫০ গ্রাম জলে ফুটিয়ে,

তারপর (after that) কিছু দুধ ও মিশ্রী মিলিয়ে চায়ের বদলে পান করুন।এই ভাবে দিনে ২ থেকে ৩ বার সেবন করলে,

চা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। আপনি যদি চান, বিনা দুধ ও বিনা মিষ্টি মিশিয়ে পান করতে পারেন।

বিশেষ:- বুকে ব্যথা হলে, ( বাচ্চাদের জন্য অর্ধেক মাত্রা ) এই ঔষধীও চা টি, খুবই লাভ কারি।

দ্বিতীয়ত (secondly) কোন প্রকারের বিষ শরীরের মধ্যে সঞ্চার হলে, এই ঔষধীও চা টি লাভদায়ক সিদ্ধ হয়।

অন্য দিকে (on the other hand) যদি কেউ লবঙ্গ খেতে না পারেন, তবে লবঙ্গর জায়গায় আদা ব্যবহার করতে পারেন।

আফিম এবং বিভিন্ন বদ অভ্যাস থেকে মুক্তি (Get rid of opium and various bad habits)

আফিম, চরস,গাঁজা, স্মাক, আদি বদ অভ্যাস ত্যাগের জন্য (১.) সাদা মুসলী (২.) বহেড়ার ছাল (৩.) মাজু ফল (৪.) পাঠানী লোধ

(৫.) কালো সুপারির ফুল (৬.) ছোট এলাচি (৭.) কমরকস (পলাশ ফুলের আঠা) এ গুলি আয়ুর্বেদিক দোকান থেকে কিনে, আলাদা

আলাদা ভাবে পরিষ্কার করে, চুর্ন করতে হবে। তারপর (after that) এই ঔষধীও চুর্ন সমান ভাগে মিশিয়ে কাঁচের পাত্রে ভোরে রাখবে।

এই ঔষধ টিকে সপ্তগুণা চুর্ন বলা হয়। এছাড়াও (in addition) আপনি সপ্তগুণা বড়ি ও বানাতে পারেন,

এর জন্য সপ্তগুণা চুর্ন দুধের সঙ্গে মিশিয়ে বড় মটর ডালের সমান বড়ি তৈরী করতে পারেন।

এখন আফিম, চরস,গাঁজা, স্মাক, বিড়ি সিগারেট, তামাক আদি বদ অভ্যাস ত্যাগের জন্য একটি বড়ি মুখে রেখে চুষতে থাকলে,

তিন দিনের মধ্যে বদ অভ্যাস থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। এদিকে (Meanwhile) যখন কিছু খাওয়ার সময় হবে,

তখন বড়ি টি মুখ থেকে বের করে, একটি পরিষ্কার পাত্রে রেখে দিন। তদুপরি (moreover) খাওয়া শেষ হলে

ঐ বড়ি টি জলে ধুয়ে পুনরায় মুখে রাখতে পারেন। সপ্তগুণা বড়ি মুখে রাখলে তিন দিন পর্যন্ত গোলবেনা।

তা সত্ত্বেও (Despite that) প্রয়োজনে বড়ি টি বদলে নতুন বড়ি ব্যবহার করতে পারেন। বিশেষ করে বড়ি টি চাবানো নিষেধ।

যতক্ষণ বাড়ি টি মুখে থাকবে ততক্ষণ কোনো নেশা করার ইচ্ছা মনে জাগবে না।

সপ্তগুণা বড়ির আরো ঔষধি গুণ:-

সপ্তগুণা বড়ি মুখে রাখলে মুখের দুর্গন্ধ দুর হয়, এবং মাশুড়ি ও দাঁত মজবুত হয়।

এছাড়াও (in addition) দাঁতে চমক আসে, আর পাইরিয়া নষ্ট হয়, অথবা দাঁতের ব্যথাও দুর হয়।

৩/৪ দিন সপ্তগুণা বড়ি মুখে রাখলে মুখের ঘাঁ ও ঠিক হয়ে যায়।

সপ্তগুণা চুর্ণ অনেক রোগের একই ঔষধ, বিশেষ করে মহিলাদের, শ্বেত-প্রদর, কোমরে ব্যথা, মাসিক ধর্ম ইত্যাদি রোগে উপকারী।

অন্য দিকে (on the other hand) এই সপ্তগুণা চুর্ণ সমভাগ মিশ্রী মিশিয়ে আধা চামচ (২ গ্রাম ) দুধ অথবা

জলের সাথে নিত্য প্রাত সেবন করা যেতে পারে। তবে এই ঔষধ পর পর ৭ দিন খাওয়ার পর, ৭ দিন বন্ধ রাখতে হবে।

কেননা (Because) শরীর কড়া হতে পারে, এই ভাবে ৩/৪ সপ্তাহ পর্যন্ত সেবন করা যেতে পারে।

The Benefits of Aloe Vera (2021) অ্যালোভেরার উপকারিতা

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here